আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জনপ্রত্যাশায় অরুন সরকার রানা

আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জনপ্রত্যাশায় অরুন সরকার রানা

ইবনে ফরহাদ তুরাগ: রাজনৈতিক পরিবারে জন্ম নেয়া অরুন সরকার রানা প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সক্রিয় কর্মী হিসেবে কাজ করে আসছেন। বর্তমানে তিনি সংগঠনের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়া রাজধানীর ওয়ারীতে ওয়ার্ড পর্যায়ে আওয়ামী লীগের দক্ষ সংগঠকের দায়িত্ব পালন করছেন দীর্ঘদিন, একইসঙ্গে মুন্সীগঞ্জে তৃণমূল কর্মীদেরও সংগঠিত করতে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি।

শুরুটা অবশ্য আরো ৪৫ বছর আগে। তখন আওয়ামী লীগের দুঃসময় চলছিল। এরশাদের স্বৈরশাসন ও বিএনপি-জামাতের দুঃশাসনে যখন প্রকাশ্যে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালনা করা খুব কষ্ট সাধ্য ছিল, তখন তিনি বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের ব্যানারে সংগঠিত করেছেন নিজেদের সংস্কৃতিকর্মীদের। ততকালীন সময়ে বঙ্গবন্ধুকন্যা আওয়ামীলীগ সভাপতি শেখ হাসিনা সহ সংগঠনের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ বিভিন্ন সভা-সমাবেশ এবং মিছিলে অংশ নিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের ব্যানারে। 

এই সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আলমগীর কুমকুম, সাবেক সভাপতি সারাহ বেগম কবরী, বর্তমান সভাপতি নন্দিত চলচ্চিত্র অভিনেতা মোহাম্মদ আলমগীর, জোটের অন্যতম নেতা অভিনেত্রী তারানা হালিম, বর্তমান কার্যকরী সভাপতি শিল্পী রফিকুল আলমসহ জোটের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে কাজ করেছেন, কাজ করে চলছেন অরুন সরকার রানা। সংস্কৃতি কর্মী হিসেবে দীর্ঘ পথ চলায় নিজেকে কখনো নেতা পরিচয় দেননি, বরং পালন করেছেন দক্ষ সংগঠক এর ভূমিকা। সেই সাথে তৃণমূল কর্মীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক অর্জন করেছেন ও মানুষের ভালোবাসা।

নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা যায়, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মুন্সীগঞ্জ ১ অথবা ঢাকা ৬ আসন থেকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রার্থী হতে পারেন অরুন সরকার রানা। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ভদ্র, বিনয়ী এবং কর্মীবান্ধব হওয়ায় এলাকার সাধারণ মানুষের কাছে গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে দুঃসময়ের এই আওয়ামীলীগ নেতার।

রাজনৈতিক সূত্রে জানা যায়, জাতির দুঃসময়ে দুর্দিনের রাজপথের সাহসী যোদ্ধা ত্যাগী আদর্শবান মানুষ মাটি ও মানুষের নেতা সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব দীর্ঘ পাঁচ চল্লিশ বছর ধরে নিঃস্বার্থভাবে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বাস্তবায়ন ও জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার জন্য এবং আওয়ামী লীগের জন্য কাজ করে যাওয়া সবার প্রিয় অরুণ সরকার রানা কে আগামী সংসদ নির্বাচন মুন্সিগঞ্জ ১ অথবা ঢাকা ৬ এর আসনের এমপি হিসেবে পেতে চায় আওয়ামীলীগের ত্যাগী আদর্শবান, নিঃস্বার্থ ও নির্যাতিত ব্যক্তিবর্গ সহ এলাকার জনসাধারণ।

তাছাড়া এই ত্যাগী ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বকে আগামী সংসদ নির্বাচনে মূল্যায়নের দাবী জানিয়েছেন সারা দেশের সাংস্কৃতিক কর্মীরা। তারা বলেন, মানবতার মমতাময়ী মা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আমাদের সাংস্কৃতিক কর্মীদের দাবী আগামী সংসদ নির্বাচনে মুন্সীগঞ্জ ১ ও ঢাকা ৬ নির্বাচনী এলাকার যে কোন একটি আসনের নৌকার মাঝি হিসাবে অরুন সরকার রানাকে মূল্যায়ন করা হলে সারা বাংলার অবহেলিত সাংস্কৃতিক অঙ্গনকে মূল্যায়ন করা হবে বলে জানান তারা।

তবে, আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিজে প্রার্থী হতে আগ্রহী কিনা জানতে চাইলে অরুণ সরকার রানা বলেন, আমার ব্যক্তিগত কোনো আগ্রহ কিংবা উচ্চাভিলাষ নেই। আওয়ামী লীগ সভাপতি বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার যেকোনো নির্দেশ পালনে সর্বোচ্চ চেষ্টা করব। আর যদি দল মনোনয়ন দেয় সে ক্ষেত্রে প্রার্থী হব।

তিনি আরও বলেন, আমার কাছে সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ একজন কর্মী হিসেবে আওয়ামী লীগের জন্য কাজ করা এবং আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে বিজয়ী করতে সর্বোচ্চ চেষ্টা চালানো।

বিআলো/শিলি