এমপির বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করায় কামরাঙ্গীরচরে বিক্ষোভ সমাবেশ দোষীদের গ্রেফতার দাবি

এমপির বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করায় কামরাঙ্গীরচরে বিক্ষোভ সমাবেশ দোষীদের গ্রেফতার দাবি

ইবনে ফরহাদ তুরাগ
কামরাঙ্গীরচরের খলিফাঘাট ও রসুলপুর এলাকায় ক্যাবল নেটওয়ার্কের লাইন সংযোগ রয়েছে ঢাকা টোটাল ক্যাবল  নেটওয়ার্কের। প্রতিষ্ঠানটির পাওনা টাকা আটকে রেখেছেন ফিল্ড অপারেটর আলী আহমেদ। বিষয়টি নিয়ে তিনি স্থানীয় সংসদ সদস্য ও সাবেক খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট মো. কামরুল ইসলামের কাছে নালিশ করেন। তার নালিশের পর আলী আহমেদকে ফোন করে কেন টাকা দিচ্ছেন না তা জানতে চান কামরুল ইসলাম এমপি।


এ কথোপকথন রেকর্ড করে তা চাঁদাবাজি হিসেবে উল্লেখ করে অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলামের বিরুদ্ধে অনলাইনে অপপ্রচার চালানো হয়।  ‘সালিশের আলোচনাকে ‘চাঁদাবাজির’ মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে একজন সম্মানিত সংসদ সদস্য, সাবেক মন্ত্রী ও বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলামের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চলানোয় স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষের মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। এতে করে ওই মিথ্যা ও অপপ্রচারের প্রতিবাদে গতকাল রবিবার বিকেলে কামরাঙ্গীরচরের মাদবর বাজার এলাকায় এক বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। 


কামরাঙ্গীরচর থানা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে উক্ত বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ মিছিল কর্মসূচিতে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কামরাঙ্গীরচর থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী সোলায়মান মাদবর। সভাপতিত্ব করেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ৫৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাজী মো. সাইদুল মাদবর। এছাড়া উক্ত অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন কামরাঙ্গীরচর থানা আওয়ামী লীগ, ৫৭নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ, ৫৭নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগ, ৫৭নং ওয়ার্ড যুবলীগ, ৫৭নং ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ ও যুব মহিলা লীগসহ আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠনের  নেতারা।
বিক্ষোভ কর্মসূচিতে বক্তারা বলেন, মিথ্যা অভিযোগে সালিশের আলোচনাকে যারা ‘চাঁদাবাজি’ বলে আখ্যায়িত করে অনলাইনে প্রচারণা চালিয়েছে, তাদের অবিলম্বে  গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় আনতে হবে।