কক্সবাজার-ঢাকা রুটে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে বিমান চলাচল শুরু

কক্সবাজার-ঢাকা রুটে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে বিমান চলাচল শুরু
কক্সবাজার-ঢাকা রুটে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে বিমান চলাচল শুরু

চঞ্চল দাশগুপ্ত, কক্সবাজার প্রতিনিধি: দেশে করোনাভাইরাসের মহামারীতে প্রায় চার মাস বন্ধ থাকার পর বৃহস্পতিবার (৩০ জুলাই) থেকে কক্সবাজার-ঢাকা রুটে বিমান চলাচল শুরু হয়েছে। সকালে বেসরকারি এয়ারলাইন্স নভোএয়ার ও ইউএস বাংলার দুটি ফ্লাইট অবতরণ ও গমণের মধ্য দিয়ে এ বিমান চলাচল শুরু হয়।

তবে বিমানের ৩৫০০ টাকা হলেও যাত্রীর সংখ্যা ছিল অর্ধেক।তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিমান চলাচল পুনরায় শুরু হওয়ায় খুশি যাত্রীরা। প্রথম দিনে ৪টি বিমানে যাত্রী পরিবহন করা হয়েছে এবং এ জন্য সব ধরনের
উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে এয়ারপোর্ট কর্তৃপক্ষ।করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সরকার গত ২৫ মার্চ থেকে আন্তর্জাতিক ও অভ্যন্তরীণ রুটের ফ্লাইট বন্ধ করে দিলে গুরুত্বপূণ কক্সবাজার-ঢাকা রুটের ফ্লাইটও বন্ধ হয়ে যায়।

প্রায় চার মাস বন্ধ থাকার পর গত ১ জুন বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক) ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট ও সৈয়দপুর রুটে উড়োজাহাজ চলাচলের অনুমতি দেয়। কিন্তু মেডিকেল টিম না থাকায় চালু হচ্ছিল না কক্সবাজার রুটের আকাশ যোগাযোগ।কক্সবাজারের স্বাস্থ্য বিভাগ এয়ারপোর্টে মেডিকেল টিমের ব্যবস্থা করলে কক্সবাজার-ঢাকা রুটে বিমান চালানোর অনুমতি দেয়া হয়। এরপর আজ সকালে নভোএয়ার ও ইউএস বাংলার দুটি ফ্লাইট ঢাকা থেকে যাত্রীদের নিয়ে কক্সবাজারে আসে এবং যাত্রী নিয়ে ঢাকা ফিরে।

যাত্রীরা জানিয়েছেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনেই তাদের এয়ারপোর্টে প্রবেশ করতে হয়েছে। এছাড়া বিমান কর্তৃপক্ষ তাদের মাস্ক, গ্লাভসও সরবরাহ করেছে। শারীরিক দূরত্ব ও মানা হয়েছে। সবকিছু মেনে বিমান চলাচল শুরু হওয়ায় খুশি তারা।

নভোএয়ারের কক্সবাজার বিমানবন্দরের শোয়েব চৌধুরী জানান, যাত্রীদের শরীরের তাপমাত্রা দেখে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাদের বোডিং করানো হয়েছে। সেইসাথে সরকারের নির্দেশনা মতে ৭০ শতাংশ লোড নিয়ে বিমান ছাড়া হয়েছে।

কক্সবাজার বিমান বন্দরের ম্যানেজার মো: আবদুল্লাহ আল ফারুক জানান, কক্সবাজার- ঢাকা রুটে ৬টি ফ্লাইট যাত্রী পরিবহন করবে। এরমধ্যে ইউএস বাংলার ৩টি এবং নভোএয়ারের তিনটি ফ্লাইট রয়েছে। এরমধ্যে দুটি এসে ফিরেও গেছে।তিনি আরও বলেন, প্রতিটি বিমানে আসা ও যাওয়ার পর বিমানবন্দর জীবাণুমুক্ত করা হচ্ছে। যাতে যাত্রীদের কোনো সমস্যায় পড়তে না হয়।

এদিকে দীর্ঘ চার মাস বিরতির পর ঢাকা-কক্সবাজার বিমান চলাচল শুরু হওয়ায় স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিতকরণে আজ বিমানবন্দরের প্রস্তুতি পরিদর্শন করেন কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আশরাফুল আফসার, জেলা পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন, সিভিল সার্জন মাহবুব রহমান সহ বিমানবন্দরে কর্মকর্তারা।

এসময় জেলা প্রশাসক জানান,আগত যাত্রীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার লক্ষ্যে মেডিকেল বোর্ড স্থাপন করা হয়েছে। যাত্রীদের ভ্রমণ ইতিহাস রেজিস্টারে লিপিবদ্ধ করা হবে, লাগেজ জীবাণুমুক্ত করা হবে এবং সন্দেহভাজন যাত্রীদের আইসোলেশনে পাঠানো হবে।

বিআলো/শিলি