কৃষ্ণাঙ্গ হত্যায় আবারও প্রতিবাদি ওসাকা

কৃষ্ণাঙ্গ হত্যায় আবারও প্রতিবাদি ওসাকা

স্পোর্টস ডেস্ক: কিছুদিন আগেই যুক্তরাষ্ট্রে কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েডকে অন্যায়ভাবে হত্যা করে দেশটির পুলিশ। যার প্রতিবাদে উত্তাল হয়ে পড়ে গোটা দুনিয়া। যার কারণেই ‘ব্ল্যাক লাইভ মেটারস’ আন্দোলনের সূত্রপাত ঘটে। সেই ঘটনার রেশ এখনও কাটেনি। এর মধ্যেই আরেক কৃষ্ণাঙ্গ জ্যাকব ব্ল্যাককে অকারণে গুলি করার অভিযোগ উঠেছে মার্কিন পুলিশের বিরুদ্ধে। উইসকনসিনের কেনোশা শহরে এই ঘটনায় আবারও উত্তাল হয়ে উঠে আমেরিকা।

জর্জ ফ্লয়েডের মতো এবার জ্যাকব ব্ল্যাককে গুলি করার পরও স্বোচ্ছার হয়ে উঠলেন জাপানের তরুণ প্রতিভাবান টেনিস তারকা নাওমি ওসাকা। দুর্দান্ত খেলেই চলমান ওয়েস্টার্ন এবং সাউদার্ন ওপেনের সেমিফাইনালের টিকেট কেটেছিলেন তিনি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেই ম্যাচ থেকে নিজের নাম প্রত্যাহার করে নিলেন বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের সাবেক এই নাম্বার ওয়ান তারকা।

এ প্রসঙ্গে নাওমি ওসাকা বলেন, ‘খেলোয়াড়েরও আগে আমি একজন কৃষ্ণাঙ্গ নারী। একজন কৃষ্ণাঙ্গ নারী হিসেবেই আমি উপলব্ধি করতে পেরেছি যে, এই মুহূর্তে আমার নিজেকে কোর্টে খেলতে দেখার চেয়েও আরও গুরুত্বপূর্ণ কিছু করার রয়েছে। যার মাধ্যমে খুব দ্রুতই সকলের নজর কেড়ে নেয়া যাবে। আমি দ্রুতই আমূল পরিবর্তন হয়ে যাবে সেটা মনে করি না তবে আমি যদি শুরুটা করি তাহলে মনে হয় একটা পদক্ষেপ অন্তত এগিয়ে যেতে পারব আমরা।’

কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচে নাওমি ওসাকা ৪-৬, ৬-২ এবং ৭-৫ ব্যবধানে এ্যানেট কোন্টাভেইটকে পরাজিত করে সেমিফাইনালে জায়গা করে নিয়েছিলেন নাওমি ওসাকা। শেষ চারের ম্যাচে তার প্রতিপক্ষ ছিলেন বেলজিয়ামের এলিস মার্টেন্স।

কিন্তু জ্যাকব ব্ল্যাককে গুলি করার কারণে প্রতিবাদস্বরূপ এই আসর থেকে নিজের নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছেন জাপানের নাওমি ওসাকা। সম্প্রতি পুলিশের হেফাজতে জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যুর জেরে উত্তপ্ত হয়েছিল
আমেরিকা।

বিআলো/শিলি