নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির অগ্রযাত্রা অব্যাহত রয়েছে : উপাচার্য

নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির অগ্রযাত্রা অব্যাহত রয়েছে : উপাচার্য
নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির উপাচার্য সাংবাদিকদের সঙ্গে এক মতবিনিময়ে বক্তব্য রাখছেন

মো. ইব্রাহীম হোসেন:  বৃহস্পতিবার নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির সিনেট হলে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক মতবিনিময় অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর আতিকুল ইসলাম।

 

এ সময় তিনি উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, দেশের প্রথম এবং সকল ধরনের জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সংস্থার র‌্যাংঙ্কিংয়ে শীর্ষে অবস্থানকারী আন্তর্জাতিক মানের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়, নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি (এনএসইউ) প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই অত্যন্ত সুনামের সঙ্গে একাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন এ বিশ্ববিদ্যালয়ে বর্তমানে ২৫,০০০ (পঁচিশ হাজার)-এরও বেশি শিক্ষার্থী বিভিন্ন বিষয়ে উচ্চশিক্ষায় অধ্যয়ন করছেন।

সম্প্রতি বাংলাদেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে একমাত্র এনএসইউই বিশ্বখ্যাত র‌্যাংঙ্কিং সংস্থা, কিউএস ওয়ার্ল্ডের এমপ্লয়াবিলিটি র‌্যাংঙ্কিং এ বিশ্বের শীর্ষ ৫০০ বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকায় স্থান লাভ করেছে। এটি আমাদের তথা দেশের জন্য অনন্য একটি অর্জন।


আতিকুল ইসলাম বলেন, নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির অগ্রযাত্রা অব্যাহত রয়েছে। এ বিশ্ববিদ্যালয়ের এ পর্যন্ত ৩০ হাজার এর ও বেশি এ্যালামনাই রয়েছেন, যারা দেশে ও বিদেশের বিভিন্ন শীর্ষ সংস্থাতে কর্মরত রয়েছেন এবং সবক্ষেত্রে তাদের মেধার স্বাক্ষর রেখে যাচ্ছেন।

সর্বশেষ গত ২ নভেম্বর ২০২১ আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশিত  কিউএস ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি র‌্যাংঙ্কিংস- এশিয়া ২০২২ এ নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের  বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমূহের মধ্যে গর্বের সঙ্গে তার অবিসংবাদিত প্রথম স্থান ধরে  রেখেছে এবং এশিয়ার সকল বিশ্ববিদ্যালয় সমূহের মধ্যে ২১৫তম স্থান অর্জন করেছে।

নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি (এনএসইউ) সর্বশেষ র‌্যাংঙ্কিং, কিউএস গ্রাজুয়েট এমপ্লয়াবিলিটি র‌্যাংঙ্কিং ২০২২ এ বিশ্বের শীর্ষ ৫০০ বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে স্থান লাভ করেছে, যা আনুষ্ঠানিকভাবে গত ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ এ বিশ্বব্যাপী প্রকাশিত হয়েছে।দেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমূহের মধ্যে একমাত্র নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিই এ মাইলফলক অর্জন করেছে।

 

প্রফেসর আতিকুল ইসলাম নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির গত দুইবছরের সময়কালে উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ গ্রহণের কথা তুলে ধরে বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন ও কর্ম নিয়ে দেশি বিদেশি  স্বনামধন্য লেখকদের লেখাসম্বলিত প্রায় ৫০০ পৃষ্ঠার একটি স্মারক গ্রন্থ প্রকাশ করেছে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি। এই গ্রন্থটি দেশের সকল সংসদ সদস্য, রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ, গণমাধ্যম ব্যক্তিবর্গসহ সকল গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের কাছে প্রেরণ করা হয়েছে। বিভিন্ন পর্যায়ের পাঠকদের কথা বিবেচনা করে বাংলা ও ইংরেজি দুই ভাষাতেই বইটি প্রকাশ করা হয়েছে।

 

তিনি আরো বলেন, নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি, একাত্তরের বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি সম্মান জানাতে এ পর্যন্ত  ১৩৯৯ জন মুক্তিযোদ্ধার সন্তানকে বিনা বেতনে পড়াশোনা করার ব্যবস্থা করে দিয়েছে। টাকার অঙ্কে এই বৃত্তির পরিমাণ প্রায় ১২০ কোটি। এর ধারাবাহিকতা দেশে যতদিন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান থাকবে আমরা চালু রাখবো। এবং নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে এখন পর্যন্ত মেধাবী ও আর্থিকভাবে অসচ্ছল শিক্ষার্থীদের প্রায় ২৮০ কোটি টাকা আর্থিক সহায়তা প্রদান করেছে এবং এ কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

 

করোনাকালের ভূমিকা নিয়ে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির উপাচার্য বলেন, এনএসইউর শিক্ষক ও কর্মকর্তারা প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে তাদের দুই দিনের বেতনের সমপরিমান মোট ৫০ লাখ টাকা অনুদান দিয়েছেন। নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি মহামারি চলাকালীন ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মাঝে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর সদস্যদের সাহায্যে ১১০০০ ব্যাগ খাদ্য ও ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেছে। নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি কোভিড-১৯ এর পরীক্ষার সহায়তার জন্যস্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ও ইডিসিআরকে প্রথম (পিসিআর) পিসিআর মেশিন এনএসইউ সরবরাহ করে কোভিড শনাক্তে সহায়তা করে।
 

নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি করোনা মহামারিতে ও সফলতার সঙ্গে প্রতি সপ্তাহে ৩০০০’র ও বেশি অনলাইন ক্লাস পরিচালনা করছে এবং সকল একাডেমিক কার্যক্রম সাভাবিক রেখে নির্বিঘ্ন পরিষেবা দিয়ে যাচ্ছে। নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির এত সাফলতার পরেও সম্প্রতি কিছু ভুল তথ্য দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম নষ্ট করার চেষ্টা চালাচ্ছে এবং বেসরকারি খাতে উচ্চ শিক্ষার অগ্রযাত্রাকে বাধাগ্রস্থ করছে যা প্রধানমন্ত্রীর রূপকল্প ২০৪১ বাস্তবায়নের পরিপন্থী।

 

এই প্রসঙ্গে আমরা কিছু তথ্য উপস্থাপন করতে চাই। বলা হচ্ছে, ক্যাম্পাস উন্নয়নের নামে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে সেমিস্টার প্রতি ৫ হাজার টাকা গ্রহণ করা হচ্ছে যা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট। নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে এ ধরনের কোন ফি গত এক দশকেও গ্রহণ করে নাই। এনএসইউ করোনাকালীন সময়ে শিক্ষার্থীদের টিউশন ফি ধারাবাহিকভাবে গত পাঁচ সেমিস্টারে ২০ শতাংশ হারে মওকুফ করেছে এবং করোনায় ক্ষতিগ্রস্থ শিক্ষার্থীদের পরিবারের জন্য অতিরিক্ত ১০০% পর্যন্ত বিশেষ টিউশন ফি মওকুফ করেছে।এনএসইউ করোনাকালীন শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়াতে গত ৫ সেমিস্টারে কোভিড-১৯ বিশেষ বৃত্তি হিসেবে সকল শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রায় ১৩৩ কোটি টাকা টিউশন ফি মওকুফ করেছে।

 

উপাচার্য আরো বলেন, নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি সব সময়ই মুক্তিযুদ্ধ এবং অসাম্প্রদায়িক চেতনায় উদ্বুদ্ধ এবং মাদক ও জঙ্গিবাদে জিরো টলারেন্স নীতিতে বিশ্বাসী। বলা হচ্ছে,  একজন সাজাপ্রাপ্ত নাফিস ইমতিয়াজকে ৮ বছর পর আবারও এনএসইউতে ভর্তির সুযোগ দেওয়া হয়েছে যা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন ও মিথ্যা। তাকে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি থেকে ৮ বছর আগেই বহিষ্কার করা হয়েছে এবং তার পুনঃ ভর্তির কোন সুযোগ নাই। শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং ইউজিসি’র পরামর্শসমূহ বাস্তবায়নে এনএসইউ সবসময় নিয়মনীতি মেনেই কাজ করে যাচ্ছে এবং নিয়মিতভাবে মন্ত্রণালয় এবং ইউজিসিকে অবহিত করছে।

 

প্রফেসর আতিকুল ইসলাম বলেন, এনএসইউর নতুন ক্যাম্পাস সম্প্রসারণের জন্য এনএসইউ এর বর্তমান ক্যাম্পাসের খুব নিকটে পূর্বাচল নতুন শহরে ২৫০ বিঘা জমি বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্প্রসারণের প্রয়োজনে ক্রয় করা হয়। আন্তর্জাতিক মানের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এনএসইউর সামগ্রিক কার্যক্রম পরিচালনার জন্য এবং আন্তর্জাতিক উপদেষ্টা পরিষদের সদস্যবৃন্দ ও বিদেশি অতিথিদের ব্যবহারের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে যানবাহন ক্রয় করা হয়। যা নিয়ে ইতেমধ্যে কিছু গণমাধ্যম মিথ্যা বানোয়াট তথ্য দিয়ে সংবাদ প্রচার করা হয়।