পৌরবাসীর আলোর বাতিঘর আরিফ উল্যাহ সরকার

পৌরবাসীর আলোর বাতিঘর আরিফ উল্যাহ সরকার

সুমন সরদার: সময় যতো এগিয়ে আসছে চাঁদপুরের মতলব উত্তরের ছেংগারচর পৌরসভার নির্বাচন ঘিরে সম্ভাব্য প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণায় মুখরিত হয়ে উঠছে এলাকা। দীর্ঘদিন যাবত মেয়রের অনুপস্থিতির কারণে মেয়র প্রার্থীদের নিয়ে বাড়তি রসদ সাধারনের আলোচনায়। এছাড়া ঈদকে ঘিরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও  পছন্দের প্রার্থীকে নিয়ে পোস্ট করতে দেখা যাচ্ছে যার-যার অনুসারীদের। তবে এই পৌরসভার মেয়র প্রার্থী হিসাবে আলোচনার কেন্দ্র বিন্দুতে আছে  সৎ ও আদর্শবান ব্যক্তিত্বসম্পন্ন, মানবতাবাদী, গরিব অসহায়ের কল্যাণে নিবেদিতপ্রাণ বলে সর্বজন স্বীকৃত মরহুম অলি উল্যাহ সরকারের ছেলে লায়ন মো. আরিফ উল্যাহ সরকার। 

তিনি প্রার্থী হওয়ায় জনমনে আশার আলো সঞ্চার হয়েছে পৌর এলাকায়। সাবেক চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম অলি উল্যাহ সরকারের ছেলে আরিফ উল্যাহ সরকার ছাত্র জীবন থেকেই রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের সাথে জড়িত রয়েছেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ বুকে ধারণ করে বাবার নির্দেশিত পথে মানুষের মঙ্গল কামনার ব্রত নিয়ে এগিয়ে চলছেন তিনি। মেধা যোগ্যতা আর বলিষ্ঠ নেতৃত্বগুণসম্পন্ন লায়ন মো. আরিফ উল্যাহ সরকার চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার ছেংগারচর পৌরসভায় এক পরিচিত নাম। এরই মধ্যে গণমানুষের প্রিয়জন হিসাবে প্রতিষ্ঠা করেছেন নিজেকে। তবে রাজনৈতিক দক্ষতা, মেধা আর সাধারণের প্রতি সৌজন্যতায় সৎ আদর্শবান আরিফ উল্যাহ সরকার এগিয়ে আছেন বলে জানা যায়।

কলেজ জীবন থেকেই নেতৃত্বের উন্মেষ ঘটে প্রজ্ঞাবান এ রাজনৈতিক নেতার। রাজনীতির শুরুতে দায়িত্ব পালন করেছেন ছেংগারচর কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি হিসাবে। এরপর জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি পদে দায়িত্ব পালন করেছেন মেধাবী এ ছাত্র নেতা। গৌরবের সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি হিসাবে। মতলবের এ কৃতি সন্তান সহ-সম্পাদক পদে দায়িত্বরত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটিতে। বর্তমানে  তিনি দায়িত্ব পালন করছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপ-কমিটির সদস্য হিসাবে। 

রাজনীতির পাশাপাশি আরিফ উল্যাহ সরকার বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের গুরুত্বপূর্ণ পদে নিজের যোগ্যতার স্বাক্ষর রেখেছেন। ঢাকাস্থ চাঁদপুর জেলা ছাত্রকল্যাণ পরিষদের সভাপতি পদে দায়িত্ব পালন করছিলেন তিনি। যুগ্ম সম্পাদক হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন ঢাকাস্থ চাঁদপুর জেলা আওয়ামী ফোরামের। দূরদর্শী এ ছাত্র নেতা ছেংগারচর প্রাক্তন ছাত্র/ছাত্রী কল্যাণ সমিতিতে দায়িত্ব পালন করে চলেছেন সাংগঠনিক সম্পাদক হিসাবে। সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন লায়ন্স ক্লাব ঢাকা ভ্রাবো’র। এছাড়া দায়িত্ব পালন করছেন রিজোন চেয়ার পার্সোন হেড কোয়াটারস লায়ন ইন্টার ন্যাশনাল ডিস্ট্রিক্স ৩১৫ এ/১ । লায়ন মো. আরিফে উল্যাহ সরকার বলেন, জনগণই মেয়র, মেয়র কেবল সেবক মাত্র আমি এই নীতিতে বিশ্বাস করি। 

দল থেকে নমিনেশন দিলে জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদ ব্যক্ত করে তিনি বলেন, মানুষের ভালোবাসা অর্জনই হবে প্রথম ও প্রধান কাজ। নির্বাচিত হলে ছেংগারচর পৌরসভা নিয়ে নানান পরিকল্পনার কথা জানান তিনি। তিনি বলেন, আমার বাবা সাবেক চেয়াম্যান মরহুম অলি উল্যাহ সরকার মানুষের সেবায় একজন নিবেদিতপ্রাণ মানুষ ছিলেন। সুখে-দুঃখে পাশে থাকা আমাদের পারিবারিক শিক্ষা। যদি আমি পৌরবাসীর সেবা করার সুযোগ পাই তাহলে আমাদের সংসদ সদস্যের সহযোগিতা নিয়ে মাদক-সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজমুক্ত এবং উন্নত নাগরিক সেবার পৌরসভা গঠন করতে চাই আমি।

নুতন নুতন প্রকল্প বাস্তবায়ন, রাস্তা-ঘাট মেরামত, বাল্যবিয়ে বন্ধ করা, পৌরবাসীর স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করা হবে অন্যতম কাজ। বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, স্বামী পরিত্যক্ত ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা পাওয়ার যোগ্য এমন সব মানুষগুলোকে এ ভাতার আওতায় নিয়ে আসা। নির্বাচিত হলে শিশু-কিশোরদের বিনোদন ও বয়স্কদের হাঁটার জন্য একটি পৌরপার্ক নির্মাণের ইচ্ছা আমার। পৌরসভার প্রতিটি ওয়ার্ডকে ধারাবাহিক উন্নয়নের আওতায় আনতে বিজ্ঞ ও এলিট শ্রেণির ব্যক্তিদের সমন্বয়ে টিম গঠন করে সকল উন্নয়ন কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাওয়া হবে বলে জানান তিনি।

বিআলো/ইসরাত