'সরকারের ‘লুটপাট নীতি’র কারণে দেশে দরিদ্র মানুষের সংখ্যা বাড়ছে'

'সরকারের ‘লুটপাট নীতি’র কারণে দেশে দরিদ্র মানুষের সংখ্যা বাড়ছে'

নিজস্ব প্রতিবেদক:সরকারের ‘লুটপাট নীতি’র কারণে প্রতিদিন দেশে দরিদ্র মানুষের সংখ্যা বাড়ছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ও উত্তর বিএনপির যৌথ উদ্যোগে 'দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে' অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, সরকারের চরিত্র হচ্ছে লুট করা। সরকার একদিকে অর্থনীতিকে লুট করছে। অন্যদিকে জনগণের পকেট কেটে নিজেদের পকেট ভারী করছে। আপনারা দেখেছেন, হাজার হাজার কোটি টাকা তারা পাচার করেছে।
তিনি বলেন, করোনা শুরুর আগে এদেশের দরিদ্র মানুষের সংখ্যা দুই কোটি ছিলো। এখন দরিদ্র হয়েছে ৩ কোটি ৪৮ লাখ। প্রতিদিনই দরিদ্র মানুষ বাড়ছে। সুতরাং সাধারণ মানুষ দিনের পর দিন গরীব থেকে গরীব হচ্ছে।

নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদির মূল্যবৃদ্ধি সরকারের সাজানো- মন্তব্য করে সবাইকে জেগে উঠার আহ্বান জানান বিএনপির মহাসচিব ।


তিনি বলেন, প্রতিবাদ সমগ্র দেশে ছড়িয়ে দিতে হবে। জনগণকে জাগিয়ে তুলতে হবে। যতদিন আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় থাকবে ততদিন জনগনের কষ্ট বাড়বে, তাদের ভোগান্তি বাড়বে। তারা আরো অসহায় হবে, গরীব থেকে আরো গরীব হবে।
তিনি বলেন, সেজন্য আজকে এই সরকারকে সরাতে জনগনকে মাঠে নামাতে হবে। আসুন আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে এই ভয়াবহ যে দানবীয় সরকার তাকে গদি থেকে সরে যাওয়ার জন্য জনগনকে ঐক্যবদ্ধ করি এবং গণবিস্ফোরণের মধ্য দিয়ে ওদের সরিয়ে আমরা দেশে সত্যিকার অর্থে একটা গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র, গণতান্ত্রিক সরকার প্রতিষ্ঠা করি।

মানববন্ধনে বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মীর উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে। একপর্যায়ে পল্টন-প্রেসক্লাব রাস্তা বন্ধ হয়ে যায়।
ঢাকা মহানগর উত্তরের আহবায়ক আমান উল্লাহ আমানের যৌথ সভাপতিত্বে ও উত্তরের সদস্য সচিব আমিনুল হক ও দক্ষিনের রফিকুল আলম মজনুর সঞ্চালনায় মানববন্ধনে আরো বক্তব্য রাখেন মহানগর দক্ষিনের আহবায়ক আবদুস সালাম, কেন্দ্রীয় নেতা হাবিবুর রহমান হাবিব, খায়রুল কবির খোকন, নাজিম উদ্দিন আলম, মীর সরফত আলী সপু, মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, হেলেন জেরিন খান, সেলিমুজ্জামান সেলিম, আমিরুজ্জামান শিমুল, অঙ্গসংগঠনের সাইফুল আলম নিরব, সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, আবদুল কাদির ভুঁইয়া জুয়েল, ফজলুল রহমান খোকন, ইকবাল হোসেন শ্যামল প্রমুখ।

বিআলো/শিলি