হজ্জ যাত্রীদের সুবিধার্থে ‘রোড টু কাবা- লার্ন অ্যাবাউট দ্য হোলি জার্নি’ অধিবেশন

হজ্জ যাত্রীদের সুবিধার্থে ‘রোড টু কাবা- লার্ন অ্যাবাউট দ্য হোলি জার্নি’ অধিবেশন

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক: স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড সাদিক, সম্প্রতি রাজধানীতে অবস্থিত স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ে ‘রোড টু কাবা- লার্ন অ্যাবাউট দ্য হোলী জার্নি’ শীর্ষক একটি অধিবেশনের আয়োজন করে। স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ডের যেসব গ্রাহকবৃন্দ এই বছর বা ভবিষ্যতে পবিত্র হজ্জ বা ওমরাহ করতে কিংবা এই বিষয়ে জানতে আগ্রহী, তাঁরা অধিবেশনে আমন্ত্রিত ছিলেন। 

এই অধিবেশনে নেতৃত্ব প্রদান করেন কোরআন শিক্ষা, গবেষণা ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের পরিচালক মো: জাহিদুর রহমান। পবিত্র হজ্জ ও ওমরাহ বিষয়ক বিভিন্ন অধিবেশন আয়োজনের তার ১০ বছরেরও বেশি অভিজ্ঞতা রয়েছে। পাশাপাশি প্রতি বছর প্রায় ১৫০০ হজ্জ যাত্রীদের তিনি প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকেন। অধিবেশনে উপস্থিত ছিলেন স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড বাংলাদেশ-এর হেড অব কনজিউমার, প্রাইভেট অ্যান্ড বিজনেস ব্যাংকিং সাব্বির আহমেদ; স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড সাদিক-এর রিটেইল ব্যাংকিং-এর পরিচালক আসিফ রহমান প্রমুখ।

বক্তৃতাকালে, হজ্জ কিভাবে একজন ব্যক্তির শিক্ষা ও সার্বিক প্রবৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখে, সে বিষয়ে কোরআন শিক্ষা, গবেষণা ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের পরিচালক মো: জাহিদুর রহমান আলোচনা করেন। তিনি বলেন, “ইসলাম ধর্মের পঞ্চম স্তম্ভ হলো হজ্জ এবং প্রতিটি মুসলিমের জীবনেই হজ্জ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। হজ্জ একজন মুসলিমের বিশ্বাসকে আরও দৃঢ় করে তোলে এবং সমাজে একজন অহংকারমুক্ত ও ভালো মানুষ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হতে সাহায্য করে। হজ্জের মাধ্যমেই একজন মুসলিমের জীবনের চূড়ান্ত সাফল্য আসে।”

স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড বাংলাদেশ-এর হেড অব কনজিউমার, প্রাইভেট অ্যান্ড বিজনেস ব্যাংকিং সাব্বির আহমেদ বলেন, “হজ্জ ইসলামের মৌলিক স্তম্ভগুলির মধ্যে অন্যতম এবং এই পবিত্র যাত্রা এমন এক সূচনা যা একজন ব্যক্তি এবং তার সমস্ত ভবিষ্যতের সিদ্ধান্তকে প্রভাবিত করে। আমাদের এই উদ্যোগ আমাদের সন্মানিত গ্রাহকদের দৈনন্দিন ব্যাঙ্কিং চাহিদার বাইরে তাদের মূল্যবোধ করে তুলতে সাহায্য করবে বলে আশা করি।” তিনি আরও বলেন, “এমন একটি মনোরম আলোচনায় অংশগ্রহণের জন্য মো: জাহিদুর রহমান এবং উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ এবং যারা এবছর ও আগামীতে হজ্জ বা ওমরাহতে যোগ দেবেন তাঁদের সকলের জন্য শুভকামনা।”

দেশের রিটেইল ও কর্পোরেট গ্রাহকদের জন্য স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড সাদিক-ই একমাত্র আন্তর্জাতিক ইসলামিক ব্যাংকিং সুবিধা দিয়ে থাকে। বিগত ১৭ বছর ধরে বাংলাদেশের পরিবর্তন ও উন্নয়নে পথ-সঞ্চালক হিসেবে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড সাদিক ভূমিকা রাখছে। ইসলামিক ব্যাংকিংয়ে বিভিন্ন সেবা তাঁরাই প্রথমবারের মতো চালু করেছে। ২০১৯ সালে সর্বপ্রথম সুকুক ট্রানসাকশন থেকে শুরু করে সাদিক সাদাকাহ অ্যাকাউন্টের প্রবর্তন ইত্যাদি সবই তাদের হাত ধরে এসেছে। স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড সাদিক তাঁদের কাজের জন্য অসংখ্য আন্তর্জাতিক সংস্থা কর্তৃক স্বীকৃত হয়েছে। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে, তাঁরা “দ্য অ্যাসেট ট্রিপল ‘এ’ ইসলামিক ফাইন্যান্স অ্যাওয়ার্ড”-এ বর্ষসেরা ব্যাংক, সেরা কান্ট্রি ডিল এবং সেরা সুকুক; ‘দ্য ব্যাংকারস ইসলামিক ব্যাংক অব দ্য ইয়ার অ্যাওয়ার্ড’-এ দেশের সেরা ইসলামী ব্যাংক; ‘গ্লোবাল রিটেইল ব্যাংকিং ইনোভেশন অ্যাওয়ার্ড’-এ দ্য ডিজিটাল ব্যাংকার কর্তৃক দেশের সেরা ইসলামিক রিটেইল ব্যাংক হিসেবে অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে। 

চলতি বছরের এপ্রিলে, ব্যাংকের ‘লিভিং ইসলাম’ সিরিজের একটি অংশ “লার্নিং ফ্রম রামাদান- দ্য মান্থ অব রিফ্লেকশন” শীর্ষক একটি লাইভ ওয়েবিনারের আয়োজন করে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড সাদিক। ২০১৯ সালে, ‘লিভিং ইসলাম’-এর উদ্বোধনী অধিবেশনের থিম ছিল “বিজনেস এথিকস”। গত বছর, অর্থাৎ, ২০২১ সালের লাইভ ওয়েবিনারের থিম ছিল “আন্ডারস্ট্যান্ডিং হাউ সাদাকাহ ক্যান বি অ্যান ইসলামিক রেসপন্স টু এ প্যানডেমিক”।