৩০ শতাংশ বেতন বৃদ্ধি করতে হবে : আবু সায়েম

৩০ শতাংশ বেতন বৃদ্ধি করতে হবে : আবু সায়েম

নিজস্ব প্রতিবেদক : দ্রব্যমূল্যের বাজারদর বিবেচনায় নিয়ে ৩০ শতাংশ বেতন বৃদ্ধির দাবি জানিয়েছেন বাংলাদেশ ১৬-২০ গ্রেড সরকারি কর্মচারী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবু সায়েম। 

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের মোহাম্মদ আকরাম খান হলে সংগঠনের ৪৪৮/এ মগবাজার কেন্দ্রীয় কমিটি কর্তৃক আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি জানান।

আবু সায়েম বলেন, সারা  দেশে প্রায় ৪ লাখ ১৬-২০ গ্রেড সরকারি কর্মচারী রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী যদি আমাদের দিকে একটু নজর দেন তাহলে আমাদের আর কোনো সমস্যা থাকবে না। আমরা অনেক আবহেলিত, তাই আমাদের দাবিগুলোর প্রতি প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্শন করছি।

বাংলাদেশ ১৬-২০ গ্রেড সরকারি কর্মচারী সমিতি কর্তৃক পেশকৃত দাবিসমূহ হলো, দ্রব্যমূল্যের বর্তমান বাজারদর বিবেচনায় নিয়ে ৩০ শতাংশ বেতন বৃদ্ধি ও ৫ বছর পূর্তিতে ৯ম পে-কমিশন গঠন করে সরকারি কর্মচারীদের বেতন বৈষম্য দূর করতে হবে। সরকারি কর্মচারীদের সকল পদে আউট সোর্সিং নিয়োগ প্রথা বাতিল করতে হবে। ব্লক পোস্ট প্রথা বাতিল করে সকল কর্মচারীদের শিক্ষাগত যোগ্যতানুসারে পদোন্নতি দিতে হবে। পেনশন/আনুষাঙ্গিক সুবিধার হার ৯০ শতাংশ-এর স্থলে ১০০ শতাংশ এবং ২৩০ টাকার স্থলে ৩০০ টাকা করে পূর্বের ন্যায় পেনশন প্রথা চালু করতে হবে। সচিবালয়ের ন্যায় সকল বিভাগ, অধিদপ্তর, পরিদপ্তরের (২০১ পে-স্কেলের পূর্বের) সকল কর্মচারীর সিলেকশন গ্রেড বাস্তবায়ন করতে হবে। বাংলাদেশ পুলিশ, সুপ্রিম কোর্ট, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক, রেলওয়ের ন্যায় সকল নিয়োগ ক্ষেত্রে ৩০ শতাংশ কোটা চালু করতে হবে। কর্মচারিগণকে সুদবিহীন গৃহনির্মাণ ঋণ দিতে হবে ও ব্যাংকিং প্রথা সহজিকরণ করতে হবে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কর্তৃক দানকৃত ৪৪৮/এ মগবাজার ঢাকাস্থ ১ তলা ভবনটি জাতির জনক টাওয়ার নামকরণ করে বহুতল ভবন নির্মাণ করতে হবে। সচিবালয়ে জাতির পিতার একটি ভাস্কর্য ও প্রধানমন্ত্রীর তোরণ কর্ণার স্থাপন করতে হবে।

বাংলাদেশ ১৬-২০ গ্রেড সরকারি কর্মচারী সমিতির সভাপতি মোহাম্মদ আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, সহ-সভাপতি মো. হেলাল উদ্দীন, উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য  মো. আ. খালেক, মো. জাহাঙ্গীর হোসেন, মো. মিজানুর রহমান খান, মো. নাসিম উদ্দীন, সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য নিজামুল ইসলাম ভূইয়া মিলন, মো. শহিদুল হালিম মিয়া,  মো. শাহাজাহান সিরাজ, আবুল হাসেম শান্তি, মো. আনিসুর রহমান, মো. সরোয়ার জমাদ্দর প্রমুখ।