গাবতলীতে এখনও ঈদযাত্রার চাপ শুরু হয়নি

গাবতলীতে এখনও ঈদযাত্রার চাপ শুরু হয়নি

নিজস্ব প্রতিবেদক: গাবতলীতে এখনও ঈদযাত্রার চাপ শুরু হয়নি। অগ্রিম বাসের টিকিট অনলাইনে বিক্রি হওয়ায় আগের মতো বাস কাউন্টারে যাত্রীদের চাপ দেখা যায়নি। পরিবহন সংশ্লিষ্টদের মতে, টিকিট অনলাইনে বিক্রি ও পদ্মা সেতু হওয়ায় কাউন্টারে যাত্রীদের চাপ কমে যাওয়ার মূর কারণ। 

শুক্রবার সাকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত গাবতলী আন্তঃজেলা বাস টার্মিনাল ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

এদিন সরজমিনে ঘুরে দেখা যায়, গাবতলী বাস টার্মিনালে যাত্রীদের তেমন কোনো ভিড়ই ছিল না। পরিবহন শ্রমিকদের প্রায় অলস সময় পার করতে দেখা গেছে। ১৫ থেকে ২০ মিনিট পরে দুই-একজন যাত্রী এলে তাদের সঙ্গে কথা বলতে দেখা গেছে টিকেট বিক্রেতাদের। গাবতলী বাস টার্মিনাল ওয়েটিং রুমে গিয়ে দেখা যায়, এখানে বাসে জন্য অপেক্ষা করছিলেন মাত্র দুই-তিনজন যাত্রী।

গাবতলী থেকে বগুড়া যাওয়ার জন্য অপেক্ষারত ফারজানা আক্তার জানান, একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী তিনি। ঈদে বাড়ি যাওয়ার জন্য বাস টারমিনালে এসে টিকিট পেতে তার বেশি সময় লাগেনি। তবে বাস আসতে একটু দেরি হয়েছে। ১২টার বাস এসেছে সাড়ে ১২টায়। বাবা মা ভাই বোনদের সঙ্গে ঈদ করতে যাচ্ছেন তিনি। ছুটি শেষে আবার ফিরবেন।

রজিনা পরিবহনের টিকেট বিক্রেতা মো. শাকিল বলেন, দক্ষিণবঙ্গ ও উওরবঙ্গ অঞ্চলে আমাদের বাস চলে। এখনও গাবতলীতে যাত্রীদের ভিড় হয়নি। ভিড় না হওয়ার মূল কারণ হচ্ছে পদ্মা সেতু। এছাড়াও অনলাইনসহ বিভিন্ন গলির মোড়ে অনেক বাসের মিনি টিকিট কাউন্টার করা আছে। সেগুলোতে মানুষ সহজেই টিকেট পেয়ে যাচ্ছে বলে অনেকে আর গাবতলী আসছেন না।

যাত্রীদের চাপ কবে নাগাদ বাড়বে জানতে চাইলে তিনি জানান, ঈদের সরকারি ছুটির উপর নির্ভর করছে যাত্রীদের চাপ। আশা করা যাচ্ছে
এপ্রিলের ৮-৯ তারিখের দিকে যাত্রীদের চাপ থাকতে পারে।

গাবতলী হানিফ এন্টারপ্রাইজ টিকিট কাউন্টার মাস্টার মো. শুভ বলেন, ২২ মার্চ থেকে আমাদের অগ্রিম টিকেট বিক্রি শুরু হয়েছে। এই
অগ্রিম টিকেট গাবতলী বালুমাঠ ও কল্যাণপুর থেকে বিক্রি হচ্ছে। অগ্রিম টিকিট বিক্রি ভালোই হয়েছে।

যাত্রীদের ভিড় কবে থেকে বাড়তে পারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আগের মতো তেমন যাত্রীদের চাপ হয় না। মূলত পদ্মা সেতুর কারণে চাপ অনেক কমে গেছে। দক্ষিণাঞ্চলের এখানে টিকিট কাটতে কম আসেন। আর উত্তরাঞ্চলের মানুষ কিছু এলেও বেশিরভাগই অনলাইনে টিকেট কাটেন। এসব কারণেই যাত্রীদের চাপ কমেছে। আশা করছি ঈদের আগে ৭, ৮ ও ৯ এপ্রিল গাবতলীতে যাত্রীদের ভিড় বাড়বে।

বিআলো/শিলি