পর্দা নামল বাজুস ফেয়ার ২০২৪ এর

পর্দা নামল বাজুস ফেয়ার ২০২৪ এর

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে শেষ হলো তিনদিনের বাংলাদেশ বাজুস ফেয়ার ২০২৩। ফেয়ারে অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠান ও দর্শনার্থীদের  র‌্যাফেল ড্র এর পুরস্কার হিসেবে তিনটি দুই লাখ টাকার ডায়মন্ডের জুয়েলারি ও সম্মাননা স্মারক দেওয়া হয়।

শনিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) রাতে রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরার নবরাত্রি হলে সম্মাননা স্মারক প্রদান ও সমাপনী অনুষ্ঠানে র‌্যাফেল ড্র এর বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন প্রধান অতিথি বাংলাদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক নঈম নিজাম। একই সঙ্গে বাজুস ফেয়ারে আটটি প্যাভিলিয়ন, ১২টি মিনি প্যাভিলিয়ন ও ৩০টি স্টলে দেশের ঐতিহ্যবাহী ৫০টি জুয়েলারি প্রতিষ্ঠানকে সম্মাননা স্মারক দেওয়া হয়।

বাজুসের সাবেক সভাপতি ডা. দিলীপ কুমার রায়ের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক নঈম নিজাম। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ জুয়েলার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বাজুস) সহ সভাপতি ডা. আমিনুল ইসলাম শাহীন, বাজুসের কোষাধ্যক্ষ ও মেলা কমিটির চেয়ারম্যান উত্তম বণিক, মেলা কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান নারয়ণ চন্দ্র দে, বাজুস স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্য সচিব উত্তম ঘোষ, বাজুসের সম্পাদক জয়নাল আবেদীন খোকনসহ বাজুসের অন্যান্য সদস্যরা।

বাংলাদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক নঈম নিজাম বলেন, বাজুসের এই যাত্রা জুয়েলারি শিল্পকে অনেক দূর নিয়ে যাবে। জুয়েলারির এই বাজার বিশ্বের দরবারে বাংলাদেশের নতুন জায়গা তৈরি করবে। এ শিল্প একদিন বিশ্ব জয় করবে। তৈরি পোশাক নয় একদিন জুয়েলারি শিল্প বাংলাদেশকে নতুন করে পরিচয় করিয়ে দেবে। দেশের অর্থনীতি নতুন করে উঠে দাঁড়ানোর পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। 

তিনি বলেন, সারা বিশ্বে বাংলাদেশ রোল মডেল। এটা সম্ভব হয়েছে আমাদের নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য। আমাদের উন্নয়নের এই ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে। এ ধরনের মেলা বিশ্বের দরবারে নিয়ে যাবেন বলে আশা করছি।  

র‌্যাফেল ড্র'র পুরস্কার তিনটি দুই লাখ টাকার ডায়মন্ডের জুয়েলারি বিজয়ী নম্বর হলো ৪৬১৯,৩৩৭৯ ও ৫০২১। পুরস্কার বিজয়ীরা হলেন, মো. লিটন, সুমা পাল ও আলো সাহা। বিজয়ীরা আপন জুয়েলার্স, বিনায়ক গোল্ড, ডায়মন্ড গার্ড এবং কুঞ্জ জুয়েলার্সের সৌজন্যে দু্ই লাখ টাকা করে তিনটি ডায়মন্ডের জুয়েলারি পুরস্কার পেয়েছেন।

এর আগে ০৮ ফেব্রুয়ারি ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরার (আইসিসিবি) নবরাত্রি হলে তিনদিনের এ ‘বাজুস ফেয়ার-২০২৩’র উদ্বোধন করেন  দেশে অন্যতম শিল্পগোষ্ঠী বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সায়েম সোবহান আনভীর।  

তিনদিনের এ ফেয়ার প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত চলে। এবার বাজুস ফেয়ারে আটটি প্যাভিলিয়ন, ১২টি মিনি প্যাভিলিয়ন ও ৩০টি স্টলে দেশের ঐতিহ্যবাহী ৫০টি জুয়েলারি প্রতিষ্ঠান অংশগ্রহণ করেছে। জুয়েলারি এক্সপোতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান মূল্য ছাড়সহ আকর্ষণীয় অফারে গহনা ও ডায়মন্ড বিক্রি করা হয়েছে।

তিনদিনের এ ফেয়ারে দুই লাখেরও বেশি দর্শনার্থীর আগমন ঘটে। দেশ-বিদেশের ক্রেতা-বিক্রেতারা এতে অংশ নেন। ফেয়ারের মাধ্যমে দেশের স্বর্ণশিল্পীদের হাতে গড়া নিত্য নতুন ডিজাইনের অলংকারের পরিচিতি ঘটেছে বলে জানিয়েছেন আয়োজকরা।

বিআলো/তুরাগ