বঙ্গবন্ধু সবার জন্য মানবিক দেশ গড়তে চেয়েছিলেন: গণপূর্তমন্ত্রী

বঙ্গবন্ধু সবার জন্য মানবিক দেশ গড়তে চেয়েছিলেন: গণপূর্তমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক: বঙ্গবন্ধু সবার জন্য একটি মানবিক দেশ গড়তে চেয়েছিলেন বলে মন্তব্য করেছেন গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী র আ ম উবায়দুল মোকতাদির।

শুক্রবার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৪তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভা ও সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের ঈদসামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এ মন্তব্য করেন। জাতীয় প্রেসক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে এ সভার আয়োজন করে শেরে বাংলা এ কে ফজলুল হক গবেষণা পরিষদ।

সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উবায়দুল মোকতাদির বলেন, বঙ্গবন্ধু শিশুদের অনেক ভালোবাসতেন। বঙ্গবন্ধুর প্রাণজুড়ে ছিল শিশুরা। বঙ্গবন্ধু শিশুদের জন্য একটি সুন্দর দেশ গড়তে চেয়েছিলেন। যে দেশে শিশুরা মুক্ত বিহঙ্গের মতো বেড়ে উঠতে পারে। যে দেশে শিশুরা অনাহারে থাকবে না, যে দেশে শিশুরা লেখাপড়ার সুযোগ পাবে। যে দেশে শিশুরা নিজেদের বিকশিত করে তুলতে পারবে, নিজেদের গড়ে তুলতে পারবে প্রকৃত মানুষ হিসেবে।

এমন একটি দেশ তিনি চেয়েছিলেন, যে দেশে শিশুদের জন্য কোনো প্রতিবন্ধকতা থাকবে না। শিশুদের জন্য সব ধরনের স্বাধীনতা থাকবে। এমন একটি দেশ তিনি চেয়েছিলেন, যে দেশে শিশুরা অবাধে নিজেদের গড়ে তুলতে পারবে। শিশুদের সুন্দর ভবিষ্যৎ কামনা করে একটি দেশ গড়তে চেয়েছিলেন বলেই তিনি বাংলাদেশকে স্বাধীনতার পথে এগিয়ে দিয়েছিলেন। এজন্য আমরা বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনকে শিশু দিবস করেছিলাম।

তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্ম শুধু তার জন্মদিন নয়, এটি সব শিশুর জন্মদিন। এখান থেকে শিশুরা তাদের যাত্রা শুরু করবে এবং একদিন বড় হয়ে বাংলাদেশকে বিশ্বের বুকে অন্যতম শ্রেষ্ঠ দেশ হিসেবে গড়ে তুলতে পারবে।

গণপূর্তমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে শেরে বাংলা এ কে ফজলুল হকের অপূর্ব মিল ছিল। শেরে বাংলা ছিলেন কৃষক-শ্রমিক-মেহনতি মানুষের
বন্ধু। বঙ্গবন্ধুও কৃষক-শ্রমিক-মেহনতি মানুষের বন্ধু ছিলেন। বঙ্গবন্ধু যখন দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য পদক্ষেপ নিয়েছিলেন, তখন তার পার্টির নাম হয়েছিল কৃষক-শ্রমিক আওয়ামী লীগ। তিনি বাংলার মানুষের জন্য কাজ করে গেছেন। শেরে বাংলা কাজ করেছেন বাংলার মুসলিম অধ্যুষিত অঞ্চলের মানুষের জন্য। বঙ্গবন্ধু সবার জন্য কাজ করেছেন, একটি মানবিক দেশ গড়তে চেয়েছিলেন। এ সময় তিনি অনুষ্ঠানে উপস্থিত শিশুদের বঙ্গবন্ধু ও শেরে বাংলার মতো বড় হওয়ার পরামর্শ দেন।

শেরে বাংলার দৌহিত্র ও সংগঠনের প্রধান উপদেষ্টা সাবেক তথ্য সচিব সৈয়দ মার্গুব মোর্শেদের সভাপতিত্বে ও শেরে বাংলা এ কে ফজলুল হক গবেষণা পরিষদের মহাসচিব মো. আর কে রিপনের পরিচালনায় সভায় আরও বক্তব্য দেন- বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যান বিচারপতি মো. নিজামুল হক নাসিম, ঢাকা-১০ আসনের সংসদ সদস্য চিত্রনায়ক ফেরদৌস আহমেদ, আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্যবিষয়ক সম্পাদক মো. সিদ্দিকুর রহমান, যুবলীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ড. সাজ্জাদ হায়দার লিটন প্রমুখ।

বিআলো/শিলি