রাশিয়ায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু

রাশিয়ায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: শুরু হয়েছে রাশিয়ায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। স্থানীয় সময় আজ শুক্রবার (১৫ মার্চ) সকাল ৮টায় শুরু হয় এ ভোট গ্রহণ। এমনটাই জানিয়েছে বার্তাসংস্থা এএফপি এবং রুশ সংবাদমাধ্যম আরটি।

জানা যায়, টানা তিন দিন ধরে চলা এই ভোট শেষ হবে আগামী রোববার।

এর আগে, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এবারের নির্বাচনেও প্রার্থী হয়েছেন। পুতিন এবার নির্বাচনে তিনজন প্রতিদ্বন্দ্বীর মুখোমুখি হয়েছেন। তারা হচ্ছেন- ডানপন্থি লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপিআর) প্রধান লিওনিড স্লুটস্কি, কমিউনিস্ট প্রার্থী নিকোলে খারিতোনভ এবং উদার মধ্যপন্থি নিউ পিপলের প্রতিনিধিত্বকারী ভ্লাদিস্লাভ দাভানকভ।

এদিকে, নির্বাচনে সব ভোটারকে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন ভøাদিমির পুতিন। অন্যদিকে, ইউক্রেন এই নির্বাচনকে ‘প্রহসন’ হিসাবে আখ্যায়িত করেছে। প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এই নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। নির্বাচনে জয়ী হলে পঞ্চমবারের মতো প্রেসিডেন্ট হবেন তিনি এবং সেক্ষেত্রে তার ক্ষমতার মেয়াদ ২০৩০ সাল পর্যন্ত বাড়বে।

সেই সঙ্গে রাশিয়ার সবচেয়ে দীর্ঘ সময় ধরে প্রেসিডেন্ট পদে থাকার রেকর্ডটিও তার হয়ে যাবে। বর্তমানে সবচেয়ে দীর্ঘ সময় রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পদে থাকার রেকর্ডের মালিক জোসেফ স্তালিন এবং লিওনিদ ব্রেজনেভ। সাবেক সোভিয়েত আমলে দু’জনেই ২৪ বছর করে ক্ষমতায় ছিলেন।

৭১ বছর বয়সী পুতিন যদি ২০৩০ সাল পর্যন্ত প্রেসিডেন্ট থাকতে পারেন, তাহলে তার ক্ষমতার মোট মেয়াদকাল পৌঁছাবে ৩০ বছরে।

তবে ইউক্রেনে রুশ বাহিনীর অভিযানের বিরোধিতা করার কারণে দুই রুশ প্রার্থীকে এবারের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার অনুমতি দেওয়া হয়নি। তারা হলেন- বরিস নাদেজদিন এবং ইয়েকাতেরিনা দান্তসোভা।

এদিকে নির্বাচনে সব ভোটারকে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। তিনি বলেছেন, রাশিয়ান প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের এই ফলাফল ‘আগামী বছরগুলোতে দেশের উন্নয়নকে বাস্তবে রূপ দেবে’। পুতিন বলেছেন, আমাদের ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে যাওয়ার দৃঢ় সংকল্প পুনর্ব্যক্ত করা প্রয়োজন। প্রতিটি ভোট মূল্যবান এবং তাৎপর্যপূর্ণ। দেশের ক্ষমতার একমাত্র উৎস হলো জনগণ, যেমনটি রাশিয়ান সংবিধানে অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

নির্বাচনকে ‘ভবিষ্যতের একটি ধাপ’ হিসাবে বর্ণনা করে রাশিয়ানদের ‘শুধু ভোট দেওয়ার জন্য নয়, দৃঢ়ভাবে তাদের ইচ্ছা এবং আকাঙ্ক্ষা, রাশিয়ার আরও উন্নয়নে তাদের ব্যক্তিগত সম্পৃক্ততা ঘোষণা করার’ আহ্বানও জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট পুতিন।

ক্রেমলিন বলেছে, ইউক্রেনে চলমান রুশ আক্রমণের পেছনে যে দেশের মানুষের পুরোপুরি সমর্থন রয়েছে সেটিই এই নির্বাচন সবার সামনে তুলে ধরবে। এছাড়া রাশিয়ার দখলে থাকা ইউক্রেনের অঞ্চলগুলোতেও ভোটকেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ক্রেমলিন।

এদিকে এএফপি বলেছে, নির্বাচনের আগে সীমান্তের ঠিক ওপারে রাশিয়ান অঞ্চলে বিমান থেকে বোমা হামলা চালিয়েছে ইউক্রেন। এছাড়া রাশিয়ান ন্যাশনাল গার্ড বলেছে, তারা কুরস্কে ইউক্রেনীয়পন্থি মিলিশিয়াদের আক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করছে।

রাশিয়ার নির্বাচন কমিশনে তথ্য অনুযায়ী, দেশটির মূল ভূখণ্ড এবং ইউক্রেনের রুশ ভূখণ্ড দোনেৎস্ক, লুহানস্ক, জাপোরিঝিয়া, খেরসন এবং ক্রিমিয়া মিলে এবারের নির্বাচনে মোট ভোটারের সংখ্যা ১১ কোটি ২৩ লাখ। সেই সঙ্গে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাসকারী রুশ নাগরিকদের মধ্যে ভোটার রয়েছেন ১৯ লাখ।

এছাড়া কাজাখস্তানের বাইকোনুর শহরে রাশিয়ার যে মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র এবং সেই কেন্দ্রকে ঘিরে যে রুশ উপশহর গড়ে উঠেছে, সেখানে ভোটার রয়েছেন প্রায় ১২ হাজার। নির্বাচন কমিশন আশা করছে, এবারের নির্বাচনে ৭০ শতাংশেরও বেশি ভোটার ভোট দেবেন।

বিআলো/শিলি