সোলায়মান আহম্মেদ (রেনু) সরকারের ১৭তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত

সোলায়মান আহম্মেদ (রেনু) সরকারের ১৭তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত

সুমন সরদার: চাঁদপুর জেলার মতলব উত্তর উপজেলার ১নং ষাটনল ইউনিয়নের বড় ষাটনল গ্রামের সরকার বাড়ির কৃতী সন্তান, অত্র উপজেলায় সুপরিচিত ষাটনল ইউনিয়নের জননন্দিত ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে আপসহীন আওয়ামী লীগ নেতা, ষাটনলের গণমানুষের আস্থা, বিশ্বাস ও ভালোবাসার প্রিয় মানুষ প্রয়াত সোলায়মান আহম্মেদ (রেনু) সরকারের ১৭তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

১০ সেপ্টম্বর শুক্রবার পবিত্র জুম্মার নামাজের পর ষাটনল গ্রামের বিভিন্ন মসজিদে একযোগে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত দোয়া ও মিলাদ মাহফিলে নিজ বাড়ির মসজিদ, সরকার বাড়ি জামে মসজিদে মরহুমের জ্যেষ্ঠপুত্র, আসন্ন ১নং ষাটনল ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মো. ফেরদাউস আলম সরকার নিজে উপস্থিত থেকে মরহুম পিতা সোলায়মান আহম্মেদ (রেনু) সরকার ও ওনার নিজের জন্যসহ পরিবারবর্গের জন্য সকলের নিকট দোয়া প্রার্থনা করেন।


এ সময় চেয়ারম্যান প্রার্থী ফেরদাউস সরকার উপস্থিত মুসল্লিদের উদ্দেশে বলেন, গত ৭ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার আমাদের মরহুম পিতা সোলায়মান আহম্মেদ (রেনু) সরকারের ১৭তম মৃত্যুবার্ষিকী ছিল। ২০০৪ সালের ৭ সেপ্টেম্বর আমাদের পিতা মহান আল্লাহ রাব্বুল আল-আমীনের ডাকে সাড়া দিয়ে পরকালে না ফেরার দেশে পাড়ি জমান। সকলের নিকট দোয়া চাই, মহান রব যাতে আমার বাবাকে পরকালে ভালো রাখেন এবং জান্নাতুল ফেরদাউস দান করেন... আমিন।


আপনারা আমার পরিবারের সকলের জন্য দোয়া করবেন আমরা যেন আমাদের মরহুম পিতা মো. সোলায়মান আহম্মেদ (রেনু) সরকারের নির্দেশিত পথ অনুসরণের মাধ্যমে ন্যায়, নীতি ও আদর্শ বুকে ধারণ করেই মানবসেবায় নিজেদেরকে নিয়োজিত রাখতে পারি। ষাটনলের মানুষের পাশে অতীতে ছিলাম, এখনো আছি, ভবিষ্যতেও থাকব। কিছু পাওয়ার আশায় নয়, ষাটনলের মানুষের পাশে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত মানুষের কল্যাণে কাজ করে যেতে চাই এবং ষাটনল  ইউনিয়নের সমস্ত মানুষের পাশে থেকে কাজ করতে চাই।

তিনি আরো বলেন সামনে আসতেছে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন তাই আমাদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে সবাইকে দলমত নির্বিশেষে ষাটনলের গণমানুষের অস্তিত্ব রক্ষার লড়াইয়ের জন্য ভোটযুদ্ধে নির্বাচনের মাঠে নামতে হবে। আমি মনে করি সকল ক্ষমতার উৎস হলো জনগণ। আমার সকল জনগণের ওপর পূর্ণ আস্থা বিশ্বাস ও ভালোবাসা আছে বলেই আমি মনে করি ভোটের লড়াইয়ের মাঠে আমরাই জয়ী হবো ইনশাআল্লাহ। 


মোনাজাত শেষে তবারক বিতরণ করা হয় এবং তবারক বিতরণ শেষে সকল ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের নিয়ে নিজ বাড়ির পারিবারিক কবরস্থানে চির নিদ্রায় শাহিত মরহুম সোলায়মান আহম্মেদ (রেনু) সরকারের কবর জিয়ারত করা হয়। কবর জিয়ারত ও মোনাজাত পরিচালনা করেন সরকার বাড়ি জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব মুফতি মো আল-আমীন।